ঢাকা, May 20, 2019, 4:20 a.m.

আবু জায়েদের পাঁচ উইকেটে, তিনশ করতে পারলো না আয়ারল্যান্ড

সিনিয়র রিপোর্টার

প্রকাশিত: May 15, 2019, 7:26 p.m.

নিউজটি মোট 54 বার পঠিত হয়েছে

স্টার্লিং-পোর্টারফিল্ড জুটিতে একসময় মনে হচ্ছিল বাংলাদেশকে বিশাল টার্গেট দিবে আইরিশরা, কিন্তু শেষ দিকে আবু জায়েদ রাহীর দুর্দান্ত বোলিংয়ে তিনশর আগেই থামল আয়ারল্যান্ডের ইনিংস। নিজের অভিষেক ম্যাচে উইকেট শুন্য থাকা আবু জায়েদ রাহী এই ম্যাচে একাই নিলেন পাঁচ উইকেট। রাহীর বোলিং তোপে ৫০ ওভার শেষে ৮  উইকেটে আয়ারল্যান্ডের  সংগ্রহ ২৯২  রান। আইরিশদের পক্ষে সর্বোচ্চ ১৩০ রান করেন পল স্টার্লিং, এছাড়া  সেঞ্চুরির খুব কাছে গিয়ে ৯৬ রানে আউট হন পোর্টারফিল্ড। বাংলাদেশের পক্ষে একটি  উইকেট পান রুবেল হোসেন এবং মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন শেষ ওভারে তুলে নেন দুই উইকেট।

স্টার্লিং ঝড় থামালেন আবু জায়েদ

সেঞ্চুরির পর বোলারদের ওপর চড়াও হয়েছিলেন পল স্টার্লিং। দারুণ এক স্লোয়ারে বিস্ফোরক ওপেনারকে ফিরিয়ে দিলেন আবু জায়েদ চৌধুরী।

লেগ স্টাম্পে ফুল লেংথের বল ছক্কায় উড়াতে চেয়েছিলেন স্টার্লিং। ঠিক মতো টাইমিং করতে পারেননি। সীমানায় ক্যাচ মুঠোয় জমান লিটন দাস। ১৪১ বলে খেলা স্টার্লিংয়ের ১৩০ রানের ইনিংসটি গড়া আট চার ও চার ছক্কায়।

টিকলেন না ও’ব্রায়েন

বেশিক্ষণ টিকলেন না কেভিন ও’ব্রায়েন। আবু জায়েদ চৌধুরীকে ছক্কায় উড়ানোর চেষ্টায় ফিরে গেছেন এই মারকুটে ব্যাটসম্যান।

লং অন দিয়ে বল উড়াতে চেয়েছিলেন ও’ব্রায়েন। টাইমিং করতে পারেননি এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান। সহজ ক্যাচ মুঠোয় নেন তামিম ইকবাল। চার বলে তিন রান করে ফিরে যান ও’ব্রায়েন। আবু জায়েদ পান নিজের তৃতীয় উইকেট।

পোর্টারফিল্ডকে ফিরিয়ে জুটি ভাঙলেন আবু জায়েদ

বোলিংয়ে ফিরে নিজের প্রথম ওভারে আঘাত হানলেন আবু জায়েদ চৌধুরী। উইলিয়াম পোর্টারফিল্ডকে ফিরিয়ে দিয়ে ১৭৪ রানের জুটি ভাঙলেন এই পেসার।

রানের গতি বাড়ানোর চেষ্টায় ছিলেন আইরিশ অধিনায়ক। সেঞ্চুরির চেয়ে রানের গতিতে দম দেওয়া বেশি জরুরি ছিল তার কাছে। সেই চেষ্টায় আবু জায়েদের অফ স্টাম্পের বেশ বাইরের বল তাড়া করতে গিয়ে এক্সট্রা কাভারে ধরা পড়েন লিটন দাসের হাতে। বিদায় নিলেন ৯৪ রানে। ১০৬ বলের ইনিংস গড়া সাত চার ও দুই ছক্কায়।

৪৫ ওভার শেষে আয়ারল্যান্ডের স্কোর ২৩৬/৩। ক্রিজে সেঞ্চুরিয়ান পল স্টার্লিংয়ে সঙ্গী কেভিন ও’ব্রায়েন।

স্টার্লিং-পোর্টারফিল্ড জুটিতে দেড়শ

মাশরাফি বিন মুর্তজার বলে উইলিয়াম পোর্টারফিল্ডের বিশাল ছক্কায় দেড়শ ছুঁয়েছে তৃতীয় উইকেট জুটির রান।

ওয়ানডেতে আইরিশদের একাদশ দেড়শ রানের জুটি আসে ১৮৯ বলে। তৃতীয় উইকেটে এটাই তাদের প্রথম দেড়শ রানের জুটি। আগের সেরা ছিল ২০১৫ সালে হোবার্টে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে অ্যান্ডি বালবার্নি ও এড জয়েসের ১৩৮।

যে কোনো উইকেটে বাংলাদেশের বিপক্ষে নিজেদের সেরা জুটি পেয়ে গেছে আয়ারল্যান্ড। ২০১০ সালে বেলফাস্টে উদ্বোধনী জুটিতে ১১৮ রান তুলেছিলেন স্টার্লি ও পোর্টারফিল্ড।

৪৩ ওভার শেষে আয়ারল্যান্ডের স্কোর ২২২/২। স্টার্লিং ১০২ ও পোর্টারফিল্ড ৯০ রানে ব্যাট করছেন।

দুইবার জীবন পাওয়া স্টার্লিংয়ের সেঞ্চুরি

ফিফটির আগে-পরে দুই মেজাজে ব্যাটিং করা পল স্টার্লিং তুলে নিলেন সেঞ্চুরি। তার ক্যারিয়ারের অষ্টম শতক, বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম।

৫৭ ও ৫৮ রানে জীবন পাওয়া স্টার্লিং তিন অঙ্কে যান ১২৭ বলে। ৫১ বলে চারটি চার ও দুই ছক্কায় ছুঁয়েছিলেন পঞ্চাশ। পঞ্চাশ থেকে শতরানে যাওয়ার পথে ৭৬ বলে মাত্র দুটি বাউন্ডারি আসে তার ব্যাট থেকে। এক বছরের বেশি সময় পর সেঞ্চুরি পেলেন এই ডানহাতি ওপেনার।

৪২ ওভার শেষে আয়ারল্যান্ডের স্কোর ২০২/২। স্টার্লিং ১০১ ও উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড ৭২ রানে ব্যাট করছেন।

পোর্টারফিল্ডের লড়াকু ফিফটি, জুটিতে শতরান

শুরুতে বেশ ভুগেছেন তবুও মাটি কামড়ে পড়ে ছিলেন উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড। সময় গড়ানোর সঙ্গে ফিরে পান নিজেকে। উইকেটের চারপাশে শট খেলে ৭০ বলে তুলে নেন ওয়ানডেতে নিজের ষোড়শ ফিফটি।

সাকিব আল হাসানের বলে সিঙ্গেল নিয়ে পঞ্চাশ স্পর্শ করেন পোর্টারফিল্ড। এই সময়ে তার ব্যাট থেকে আসে পাঁচ চার। সবশেষ ১৫ ম্যাচে এটি অধিনায়কের প্রথম পঞ্চাশ ছোঁয়া ইনিংস।

এই ওভারেই এক বল পরে পল স্টার্লিংয়ের সিঙ্গেলে তিন অঙ্কে যায় তৃতীয় উইকেট জুটির রান। মন্থর শুরু করা জুটির একশ রান আসে ১৩৮ বলে।

৩৪ ওভার শেষে আয়ারল্যান্ডের স্কোর ১৬০/২। স্টার্লিং ৮১ ও পোর্টারফিল্ড ৫১ রানে ব্যাট করছেন।

পরপর দুই বলে স্টার্লিংয়ের জীবন

শুরুতে আগ্রাসী ব্যাটিং করা পল স্টার্লিং ভুগছিলেন মোসাদ্দেক হোসেন ও মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিনের আঁটসাঁট বোলিংয়ে। ২১তম ওভারের শেষ বলে অফ স্পিনার মোসাদ্দেককে উড়িয়ে কমাতে চেয়েছিলেন চাপ। ঠিক মতো টাইমিং হয়নি, ক্যাচ যায় লং অফে। একটু দেরিতে সাড়া দেওয়া সাব্বির রহমান কিছুটা ছুটে এসে ঝাঁপিয়ে পড়লেও ক্যাচ মুঠোয় নিতে পারেননি।

৫৭ রানে জীবন পাওয়া স্টার্লিং পরের ওভারের প্রথম বলে বেঁচে যান সাইফের ব্যর্থতায়। বোলিংয়ে এসে নিজের প্রথম বলেই উইকেট পেতে পারতেন সাকিব আল হাসান। বাঁহাতি স্পিনারের বলে পয়েন্টে একদম সহজ ক্যাচ মুঠোয় নিতে পারেননি সাইফ।

২২ ওভার শেষে আয়ারল্যান্ডের স্কোর ১০৩/২। স্টার্লিং ৫৯ ও উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড ১৮ রানে ব্যাট করছেন।

আয়ারল্যান্ডের একশ

অ্যান্ডি বালবার্নিকে হারানোর পর কিছুটা কমেছে আয়ারল্যান্ডের গতি। নবম ওভারে পঞ্চাশ ছোঁয়া স্বাগতিকদের রান তিন অঙ্কে গেছে ২১তম ওভারে।

শুরুতে বোলারদের ওপর চড়াও হওয়া পল স্টার্লিং ধরে রাখতে পারেননি গতি। রানের জন্য সংগ্রাম করছেন অধিনায়ক উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড।

একটু খরুচে বোলিং করেছেন কেবল আবু জায়েদ। আর কেউ ওভার প্রতি পাঁচের বেশি রান দেননি। বোলিং সামর্থ্যের জন্য বিশ্বকাপ দলে জায়গা পাওয়া মোসাদ্দেক হোসেন অফ স্পিনে বেঁধে রেখেছেন ব্যাটসম্যানদের। রুবেল হোসেন ও মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন ভালো করেছেন নিজেদের প্রথম স্পেলে।

২১ ওভার শেষে আয়ারল্যান্ডের স্কোর ১০১/২। স্টার্লিং ৫৮ ও পোর্টারফিল্ড ১৬ রানে ব্যাট করছেন।

আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ে স্টার্লিংয়ের ফিফটি

শুরু থেকে বোলারদের উপর চড়াও হয়ে দ্রুত রান তুলছেন পল স্টার্লিং। আয়ারল্যান্ডের বিস্ফোরক ওপেনার ৫১ বলে তুলে নিয়েছেন তার ক্যারিয়ারের ২০তম ফিফটি।

সপ্তদশ ওভারে সিঙ্গেল নিয়ে পঞ্চাশ স্পর্শ করেন স্টার্লিং। এই সময়ে তার ব্যাট থেকে আসে চারটি চার ও দুটি ছক্কা। আইরিশ ওপেনার দুটি ছক্কাই হাঁকিয়েছেন রুবেল হোসেনকে।

১৭ ওভার শেষে আয়ারল্যান্ডের স্কোর ৮৯/২। স্টার্লিং ৫২ ও অধিনায়ক পোর্টারফিল্ড ১১ রানে ব্যাট করছেন।

আবু জায়েদের প্রথম উইকেট বালবার্নি

অভিষেকে উইকেটশূন্য আবু জায়েদ দ্বিতীয় ম্যাচে পেলেন উইকেটের দেখা। ফিরিয়ে দিলেন আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান অ্যান্ডি বালবার্নিকে।

খরুচে বোলিং করা আবু জায়েদ সাফল্য পেলেন শর্ট বলে। শরীরের কাছে থাকা বল ঠিক মতো খেলতে পারেননি বালবার্নি। সহজ ক্যাচ গ্লাভসে জমান মুশফিকুর রহিম।

২০ বলে চারটি চারে ২০ রান করে ফিরেন বালবার্নি। ১১ ওভার শেষে আয়ারল্যান্ডের স্কোর ৬০/২। শুরু থেকে আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করা পল স্টার্লিংয়ের সঙ্গে ক্রিজে যোগ দিয়েছেন অধিনায়ক উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড।

আয়ারল্যান্ডের পঞ্চাশ

নবম ওভারের শেষ বলে পঞ্চাশ স্পর্শ করলো আয়ারল্যান্ডের রান। আবু জায়েদ চৌধুরীর বল ঠিক মতো খেলতে পারেননি অ্যান্ডি বালবার্নি। ব্যাটের কানায় লেগে স্লিপে ক্যাচের মতো উঠেছিল, সেখানে কোনো ফিল্ডার না থাকায় ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান পেয়ে যান বাউন্ডারি।

৯ ওভার শেষে আয়ারল্যান্ডের স্কোর ৫৩/১। পল স্টার্লিং ৩২ ও আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান বালবার্নি ১৪ রানে খেলছেন।

প্রথম আঘাত রুবেলের

বেশিক্ষণ টিকল না আয়ারল্যান্ডের শুরুর জুটি। চতুর্থ ওভারে জেমস ম্যাককলামকে ফিরিয়ে দিলেন রুবেল হোসেন।

অফ স্টাম্পের লেংথ বল ব্যাক ফুট পাঞ্চ করতে চেয়েছিলেন ম্যাককলাম। ঠিকমতো খেলতে পারেননি। ব্যাটের কানায় লেগে স্লিপে ধরা পড়েন লিটন দাসের হাতে।

আয়ারল্যান্ড ‘এ’ দলের হয়ে প্রস্তুতি ম্যাচে বাংলাদেশের বিপক্ষে সেঞ্চুরি করা ম্যাককলাম ফিরেন এক চারে ১০ বলে ৫ রান করে। ভাঙে ২৩ রানের জুটি।

৪ ওভার শেষে আয়ারল্যান্ডের স্কোর ২৩/১। ক্রিজে পল স্টার্লিংয়ের সঙ্গী অ্যান্ডি বালবার্নি।

১৪ মে,১৯৯৯ বাংলাদেশ ক্রিকেট ইতিহাসের সেরা দিন

এইমাত্র বিসিবি থেকে বিশাল সুখবর পেল "ইমরুল কায়েস"

চমক দিয়ে দল ঘোষণার সমস্ত হিসাব পাল্টে দিল পাপন। সৌম্য, লিটন, সাব্বিরের ১ ম্যাচ ভালো তো ১০ ম্যাচ খারাপ...

ভোরে নয় বাংলাদেশ সময় অনুযায়ী ত্রিদেশীয় সিরিজ যখন শুরু হবে

বিশ্বকাপের ১০ দেশের আনলাকি স্কোয়াড দেখেনিন

‘যখন শুনেছি ১৫ জনের মধ্যে আছি তখন আরেকটু বেশিই অবাক হয়েছি’

বিশ্বকাপ শুরুর আগেই ইংল্যান্ড থেকে যে বিশাল দুঃসংবাদ পেল বাংলাদেশ

লিটন না সৌম্য? বিশ্বকাপে তামিমের সঙ্গী কে? জানালেন কোচ স্টিভ রোডস!

দুইটি চমক দিয়েই বিশ্বকাপের জন্য বাংলাদেশের ১৫ সদস্যের স্কোয়াড ঘোষণা করলো বিসিবি !

চমক দিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজের জন্য উইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের দল ঘোষণা করলো বিসিবি !

নিজ মুখে জানিয়ে দিলেন বিশ্বকাপে যাদেরকে দলে চান তামিম ইকবাল